শেরপুর পৌরসভা।

5
538

দেশের প্রাচীন পৌরসভা গুলোর একটি শেরপুর পৌরসভা। ১৮৬৯ সালে ১লা এপ্রিল তারিখে শেরপুর পৌরসভা ১২ জন সদস্য নিয়ে পৌরসভা গঠিত হয়েছিল। সদস্যদের কমিশনার বলা হতো। পৌরসভার অধীনস্থ স্থানকে ৪ টি ওয়ার্ডে বিভক্ত করা হয়েছিল এবং প্রতি ওয়ার্ডে ২ জন করে মোট ৮ জন সদস্য নির্বাচিত হতো। ১৯৩৭ সালে পৌরসভা গঠন প্রণালী পরিবর্তন ও পরিবর্ধন হলে শেরপুর পৌরসভার ৪ টি ওয়ার্ডের পরিবর্তে ৫ টি ওয়ার্ডে উন্নতি করা হয়। বর্তমানে ৫ টি ওয়ার্ডে ৩০ টি মহল্লা আছে। ১৯৪৫ সাল পর্যন্ত কোন মুসলমান শেরপুর পৌরসভার সভাপতি নিযুক্ত হতে পারেনি।

পৌরসভার আদি ভবন

সভাপতির আসন জমিদার বংশীয় কোন না কোন সদস্যের একচেটিয়া অধিকার ছিল।
নিচের অংশটুকু উইকিপিডিয়া থেকে নেওয়া-

স্বাধীনতা উত্তর কালে ১৯৭৩ সনে বাংলাদেশের নতুন সংবিধানের বিধান অনুসারে প্রথম অনুষ্ঠিত শেরপুর পৌর নির্বাচনে পৌর ভোটারদের সরাসরি ভোটে প্রবীণ জননেতা ‘‘খন্দকার মজিবর রহমান’’ চেয়ারম্যান এবং ছাত্রনেতা ‘‘আমজাদ হোসেন’’ ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। বর্তমানে পৌরসভায় ১ জন মেয়র, ৩ জন প্যানেল মেয়র, ০৭ জন কাউন্সিলর ও ২ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর আছে।

শেরপুর পৌরসভা আগের চেয়ে অনেক উন্নতি লাভ করেছে এবং অনেক পরিবর্তন ও পরিবর্ধন হয়েছে।