আওয়ার শেরপুর আমার ভরসার জায়গা – Popy Sarker

0
50
Popy Sarker

পপি সরকার : আওয়ার শেরপুর, আমার কাছে একটা পেজ না, আমার ভরসার জায়গা। ঠিক এই (ভরসা) জায়গাটা থেকেই আমি আওয়ার শেরপুর এর রেগুলার ক্রেতা।

আওয়ার শেরপুর এর কোন গ্রুপ না থাকলেও অভাব টা ফিল করিনা কেননা দেলোয়ার ভাইয়া যথেষ্ট আন্তরিক তার ক্রেতাদের ব্যাপারে। তবে হ্যা, গ্রুপ থাকলে মতামত দেয়া নেয়া ডিরেক্টলি গ্রুপে ই পাওয়া যায়, এই দিকটা আমার ভীষণ পজিটিভ লাগে।

ডেলিভারি প্রসেস, এক কথায় অসাধারণ। একবার সমস্যার কারণে আমি একটা কুরিয়ার সার্ভিস থেকে পণ্য তুলতে পারছিলাম না, ভাইয়া অন্য মাধ্যম এ পাঠিয়ে বারবার শিউর হয়ে নিয়েছেন, খোজ নিচ্ছিলেন, এই ব্যাপার টা আমার ভীষণ ই মনে দাগ কেটেছে। সবথেকে বড় কথা এত দ্রুত ডেলিভারি দেন যে আমি স্যাটিসফাইড।

অর্ডার হ্যান্ডলিং, অর্ডার নেয়া বা আমি পর্যন্ত (ডেলিভারি) আসা এই ব্যাপার টায় ভাইয়া খুব সচেতন। আমি রিপিট ক্রেতা আওয়ার শেরপুর এর। একটাই কারণ আমি কখনো ই নিরাশ হইনি চাল নিয়ে। নিঃসন্দেহে চাল টির কোয়ালিটি খুব ই ভালো।

আমি তুলশীমালা চাল এর রিপিট ক্রেতা। বেশ কয়েকবার এই চালটি কিনেছি। রিপিট ক্রেতা হবার একটা ই কারণ স্যাটিসফেকশন। চাল নিয়ে কখনো আমার নিরাশ হতে হয়নি। চালের মান এবং চাল দিয়ে তৈরি খাবার আমার পরিবারের মানুষ রা খুব পছন্দ করে। আমি নিশ্চিন্তে থাকতে পারি এই চাল টা অর্ডার করে। পরের সব দায়িত্ব ভাইয়া নিজে নিয়ে যত্ন করে পঠিয়ে দেন৷ তাই জন্য ই বারবার ভাইয়ার ক্রেতা হই।

ভাইয়া সব সময় তার ক্রেতাদের অনার ফিল করান এই ব্যাপার টা আমাকে অনেক বেশি মুগ্ধ করে।

ভাইয়া আপনার পেজ নিয়ে এটা ই বলতে চাই যে মন্ডা খাওয়ার খুব ইচ্ছা আছে। এগুলো আমাদের খাওয়ানোর ব্যবস্থা করতে পারলে খুব ভালো হবে। আরো কিছু পণ্য এড করবেন ভাইয়া, তাহলে আপনার বিজনেস এর পরিধি হয়তো আরো বাড়বে, কেননা আপনার মার্কেটিং এবং অন্যান্য সব কিছু ভীষণ গুছানো।

আমার উদ্যোগ EpPe shopping (ইপ্পি শপিং) আমি নিজে ও দেশীয় পণ্যের একজন উদ্যোক্তা। কাজ করি টাংগাইল এর ঐতিহ্যবাহী পণ্য টাংগাইল এর শাড়ি, থ্রিপিছ নিয়ে। আমার উদ্যোগ এর আরেকটা বড় অংশ হলো দেশীয় গ্রামীন কর্মীদের দিয়ে হাতের কাজের পোশাক। আমি চাই আমাদের দেশের পণ্যগুলোর গণ্ডি হবে সারাবিশ্বজুড়ে আমাদের মত উদ্যোক্তাদের হাত ধরে ই ইন শা আল্লাহ। সেই লক্ষ্যেই সব সময় চাই পণ্যের মান এবং আমাদের সেবার খুব ভালো একটা সমন্বয়, যাতে ক্রেতা থাকে স্যাটিসফাইড।

তুলসীমালা চাল টা নিয়ে অনেক ঘটনা, অনেক স্মৃতি কারণ লম্বা একটা সময় ধরে আমি এর সাথে আছি। আমার হাজব্যান্ড তেল খুব কম খায়, আর এই চাল টা একেবারে সামান্য তেল এ ই পোলাও, খিচুড়ি বা অন্যান্য রীচফুড খুব সুন্দর ভাবে তৈরি করা যায়। ঠিক প্রথম যেদিন এটি আমার বাসায় রান্না হলো আমার হাজব্যান্ড তো খেয়েই বলতেছিলো এটা ই কনফার্ম৷ আজ থেকে আর বাহিরের সুগন্ধী চাল চলবে না। আমি খুব খুশি হয়েছিলাম সেদিন। কারণ আমার দিক থেকে কোন জিনিস এলে, আর তা যদি পরিবারে স্বীকৃত হয়, এটা অন্যরকম ভালোলাগার বিষয় হয়ে যায়।